আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেন ধোনি

খেলাধুলা

স্পোর্টস ডেস্ক

স্বাধীনতা দিবসের দিনই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেললেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের কাছে হারের পর থেকেই ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ককে নিয়ে চলছিল নিরন্তর জল্পনা। কবে তিনি অবসর গ্রহণ করবেন, তা নিয়ে ছিল প্রবল কৌতূহল। যাবতীয় জল্পনা, কৌতূহলের অবসান ঘটালেন শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা নাগাদ। জাতীয় দলের ক্রিকেটে প্রাক্তন হয়ে গেলেন মাহি।

বিশ্বজয়ী অধিনায়ক নিজের অবসর নিয়ে একটি শব্দও খরচ করেননি এতদিন। স্বাধীনতা দিবসের দিনই যে অবসর গ্রহণ করে সবাইকে চমকে দেবেন তিনি, তা ঘুণাক্ষরেও কেউ টের পাননি। শনিবার সন্ধ্যায় নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে ধোনি জানিয়ে দেন তাঁর অবসরের কথা। ধোনি তাঁর ভক্তদের উদ্দেশ করে লিখেছেন, ‘‘কেরিয়ার জুড়ে আমার প্রতি ভালবাসা এবং সমর্থনের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। ৭টা ২৯ (সন্ধে সাড়ে সাতটা) থেকে আমাকে অবসর প্রাপ্ত ক্রিকেটার হিসেবে ধরে নিতে পারো।’’

চিরকালই চমক দিয়ে এসেছেন ধোনি। ২০১৪ সাল‌ের ৩০ ডিসেম্বর অস্ট্রেলিয়া সিরিজ চলাকালীনই ধোনি জানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি টেস্ট ক্রিকেট থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন। আচম্বিতে নেওয়া তাঁর এই সিদ্ধান্তে কেঁপে গিয়েছিল ক্রিকেটবিশ্ব। বছর তিনেক আগে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজ শুরুর ঠিক আগে সবাইকে চমকে দিয়েই নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন ‘ক্যাপ্টেন কুল’।

ধোনি তো এমনই। কাউকে কিছু বুঝতে দেন না আগে থেকে। ২০১৯ বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের কাছে সেমিফাইনালের হারের পর থেকে আর মাঠে ফেরেননি ধোনি। ক্রিকেটভক্তরা প্রায় প্রতিদিনই জানতে চাইতেন কবে অবসর নিচ্ছেন মাহি। তিনি কি টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলবেন, তা নিয়েও চলত গবেষণা। ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা ধোনিকে নিয়ে নানা মতামত দিতেন। কিন্তু যাঁকে নিয়ে এত কথা তিনি নিশ্চুপ। এত বড় একটা সিদ্ধান্ত যে নিতে চলেছেন তিনি, তা আগাম জানতে দেননি কাউকেই।

একনজরে ধোনি-কথা

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে সরে দাঁড়ালেও আইপিএল অবশ্য খেলবেন তিনি। তবে তাঁর আইপিএল-কেরিয়ার কতদিন দীর্ঘায়িত হবে সে ব্যাপারে অবশ্য এ দিন কিছু জানাননি।

মেগা টুর্নামেন্টের জন্য মরুশহরে উড়ে যাওয়ার আগে ছ’ দিনের কন্ডিশনিং ক্যাম্পের আয়োজন করেছে চেন্নাই সুপার কিংস। সেই ক্যাম্পের জন্য চেন্নাই পৌঁছেই ধোনি জানিয়ে দিলেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার কথা। শেষ হয়ে গেল দীর্ঘ ১৫ বছরের ক্রিকেট পরিক্রমা। এই ১৫ বছরে সবুজ গালচের আনাচকানাচে ধোনি রেখে গিয়েছেন অসংখ্য মণিমানিক্য। জিতেছেন টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত পঞ্চাশ ওভারের বিশ্বকাপে ভারতকে চ্যাম্পিয়ন করেছেন, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিতেছেন। তাঁর হাত ধরেই টেস্ট ক্রিকে্টে বিশ্বের একনম্বর দল হয়েছিল ভারত। পরিসংখ্যানের দিক থেকে দেখতে গেলে দেশের সফলতম অধিনায়ক তিনিই। শনিবার ভারতীয় ক্রিকেটে ধোনি-যুগ শেষ হয়ে গেল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *