কাহারোলে ২ সন্তানের জননী গৃহবধুর লাশ উদ্ধার, স্বামী পলাতক, শ্বশুড়-শ্বাশুড়ী আটক

প্রিয় দিনাজপুর

কাহারোল (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার মুকুন্দপুর ইউনিয়নের সুন্দইল গ্রামের চিড়াকুঠি পাড়ায় গৃহবধু রুপালী রায় (৩০) স্বামী বিষু চন্দ্র রায় (৩৮) এর মরদেহ নিজ কক্ষ হতে উদ্ধার করেছে কাহারোল থানা পুলিশ। গত ১১ অক্টোবর ২০২০ সন্ধ্যা ৬টায় পুলিশ ঐ গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

১২ অক্টোবর সকালে ময়না তদন্তের জন্য গৃহবধুর লাশ দিনাজপুর মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। রুপালির সমস্ত শরীরে আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, বেশ কয়েকদিন থেকে গৃহবধু রুপালীকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। এই নির্যাতনেই তার মৃত্যু হতে পারে এলাকার অনেকেই ধারণা করছে। ঘটনার পর হতে তার স্বামী পলাতক রয়েছে।

পুলিশ রুপালীর শ্বশুড় জিতেন চন্দ্র রায় (৬৫) এবং শ্বাশুড়ী সুবালা রানী রায় (৫০) কে আটক করে দিনাজপুর জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। এই ঘটনায় নিহত রুপালীর বাবা পরেশ চন্দ্র রায় বাদী হয়ে ১১/১০/২০২০ তারিখে কাহারোল থানায় ৩০২/৩৪ দ:বি: ধারায় একটি মামলা দায়ের করেছে। মামলা নং-০২, মামলা বিবরণ থেকে জানা যায়, গত ৮ বছর পূর্বে পরেশ চন্দ্র রায়ের মেয়ে রুপালী রানী রায়, সাং- সহষপুর (কোনপাড়া) থানা- বোচাগঞ্জ, জেলা- দিনাজপুর বিষু চন্দ্র রায়ের সাথে হিন্দু ধর্মীয় বিধান মোতাবেক বিয়ে হয়। নিহত রুপালী রানীর ৫ বছরের ১ কন্যা সন্তান ও ৭ বছরের ১ পুত্র সন্তান রয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, রুপালীকে তার স্বামীসহ শ্বশুড় রাড়ির লোকজন মারপিটসহ বিভিন্ন নির্যাতন করে আসছিল। এ ব্যাপারে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সহায়তায় স্বামীর সংসারের হাল ধরেই ছিল রুপালী। বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে, সকাল আনুমানিক ১০টার দিকে রুপালীকে বে-ধরক নির্যাতর করা হয়।

কাহারোল থানা অফিসার ইনচার্জ মনোজ কুমার রায় জানান, এই ঘটনাটির সংবাদ পেয়েই পুলিশ রুপালীর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। রুপালীর মরদেহের শুরতহাল দেখে ধারনা করেছেন, রুপালীকে বে-ধরক পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। পলাতক স্বামী বিষুকে গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *