নারী শিষ্যদের পিল খাইয়ে ধর্ষণ, ১০৭৫ বছরের জেল ধর্মগুরুর

অন্যান্য

অনলাইন ডেস্ক: যৌন নির্যাতন-সহ নারীদের ওপর অত্যাচারের একাধিক অভিযোগে ৬৪ বছরের জনপ্রিয় ধর্মগুরু ওকতারকে ১০৭৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে তুরস্কের একটি আদালত।

সোমবার দেশটির একটি আদালতে ওকতারের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি, নাবালিকাদের যৌন নির্যাতন, প্রতারণা এবং রাজনৈতিক ও সামরিক গুপ্তচরভিত্তিক কাজের অভিযোগ আনা হয়। পরে আদালত এ রায় দেন।

এর আগে ডিসেম্বরে ওকতার বিচারককে বলেছিলেন, তার প্রায় এক হাজার গালফ্রেন্ড রয়েছে।

পুলিশ জানায়, ওকতারের ভাবনায় নারীরা ‘পোষ্য’ বলে বিবেচিত হত। এই ধর্মগুরু দাবি করতেন, ‘তাঁর জীবনে প্রেম বিলিয়ে চলাই লক্ষ্য। অশেষ প্রণয় তার হৃদয়ে আছে।’

১৯৯০ সালে কয়েকটি কেলেংকারির ঘটনায় ওকতারের নাম সামনে আসে।কিন্ত ২০১১ সাল থেকে একাধিক মামলা জমতে থাকে তার নামে। এক নারী জানান, ধর্ম প্রচারের নামে নৃশংস যৌন অত্যাচার করেন ওকতার। পুলিশ পরে ওকতারের বাড়ি তল্লাশি করে ৯৬ হাজার গর্ভনিরোধক পিল পায়। যেগুলি জোর করে তার নারী শিষ্যদের খেতে বাধ্য করত এই ধর্মগুরু।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *