বিভিন্ন কিতাব বই পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন জাবি শিক্ষার্থী অনুপম পাল

প্রিয় দিনাজপুর

অনলাইন ডেস্ক: কারও প্ররোচনা বা ইসলামের দাওয়াত ছাড়াই বিভিন্ন কিতাব বই পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ার পাল পরিবারের অনুপম পাল। তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের ৪২তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। 

সরকারি বিধি মোতাবেক নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে এক হলফনামায় স্বাক্ষর করে তিনি এ ঘোষণা দিয়েছেন। ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে তার নাম রেখেছেন মুজতাবা রাহমান তাহমিদ। তিনি উপজেলার পালপাড়া গ্রামের প্রধান শিক্ষক অরুণ পালের ছেলে বলে জানা গেছে। 

অনুপম বলেন, আমি স্বেচ্ছায়, স্বজ্ঞানে, সুস্থ মস্তিষ্কে অন্যের বিনা প্ররোচনায় ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছি। ইসলামের সব নিয়ম-কানুন জেনে-বুঝে মহান আল্লাহ্ রাব্বুল আলামিন এক ও অদ্বিতীয়, তার পবিত্র ধর্মগ্রন্থ আল কোরআন এবং তার প্রেরিত রাসূল হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর ওপর বিশ্বাস স্থাপন করেছি। আমি ইসলামের সব বিধিবিধান পালন করছি।

হলফনামায় অনুপ কুমার পালের পরিবর্তে মুজতবা রাহমান তাহমিদ সংশোধন করেছেন এবং এই নামেই এখন থেকে সব ক্ষেত্রে ব্যবহার ও পরিচিত হবেন। ইতোমধ্যে তাহমিদ তার সব শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রে তার  নাম পরিবর্তনের জন্য ঘোষণা দিয়েছেন।

ইসলাম ধর্ম গ্রহণের বিষয়ে তিনি তার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে লেখেন- সকল প্রশংসা মহান স্রষ্টার, যিনি আমাকে এই সত্য উপলব্ধি করিয়েছেন। সবার ভাগ্যে এ সত্যের সন্ধান জোটে না, তাই নিজেকে ভাগ্যবান মনে করি।

তাহমিদ জানান, ২০০৯ সাল থেকে ইসলামের ওপর বিশ্বাসের শুরু। এ বিশ্বাসের পেছনে পৃথিবীর কেউ বা কোনো কিছু দায়ী না। কেউ আমাকে ইসলামের দাওয়াত দেয়নি। স্রষ্টার কৃপায় নিজের বুদ্ধি-বিবেক দিয়ে বই কিতাব পড়ে, জেনে-বুঝেই এগিয়েছি। পথে অনেক বাধাবিপত্তি ছিল। আল্লাহর রহমতে একটার পর একটা পাড়ি দিয়েছি। এ বিশ্বাস নিয়েই আজীবন থাকতে চাই।

সবার কাছে দোয়া চেয়ে তিনি বলেন, জানি আমার এ বিশ্বাসের অসংখ্য বিরোধিতা করার লোক পাব। বিশ্বাসের ব্যাপারে আমার সঙ্গে কথা বলতে পারেন কিন্তু দয়া করে হেনস্তা করার চেষ্টা করবেন না। এখনো বেকার, আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হইনি। নিশ্চয়ই আল্লাহ্ সাহায্য করবেন।

সূত্র: যুগান্তর পত্রিকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *