৬ মাস ধরে স্কুল বন্ধ থাকায মানবেতন জীবন যাপন করছে বোচাগঞ্জের কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের শিক্ষক-কর্মচারীরা

প্রিয় দিনাজপুর

বোচাগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস প্রাদূর্ভাবের কারনে সরকারি সিন্ধান্তে সকল সরকারি ও বে-সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কারনে অর্থনৈতিক দৈনতায় পড়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন বোচাগঞ্জ উপজেলার বে-সরকারি কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের শিক্ষক-কর্মচারীরা।

জানা গেছে, বোচাগঞ্জ উপজেলার সেতাবগঞ্জ পৌরসভাসহ ৬টি ইউনিয়নে ৩৭টি কিন্ডার গার্ডেন স্কুলে ৪৮৫ জন শিক্ষক-কর্মচারী কর্মরত রয়েছেন। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৭ হাজার ২শত ১৪ জন ছাত্র-ছাত্রী নিয়মিত ক্লাশ করে আসছিলেন। কিন্তুু বৈশ্বিক মহামারি কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবের কারনে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী গত ১৭ মার্চ-২০২০ ইং হতে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হওয়ায় এসব বে-সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা নিয়মিত বেতন ভাতা না পাওয়ায় পরিবার পরিজন নিয়ে চরম মানবেতর জীবন যাপন করছেন।

বোচাগঞ্জ উপজেলা কিন্ডার গার্ডের স্কুল এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক মোঃ মোস্তাফিজুর রহামন হিরু জানান, ৩৭টি কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের মধ্যে এসোসিয়েশ ভুক্ত ৩২টি বে-সরকারি কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের শিক্ষক-কর্মচারীরা ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়মিত মাসিক বেতন ও ডে-কেয়ার বা কোচিং ক্লাশের অর্থের উপরই নির্ভরশীল। তাদের মাসের বেতন দিয়েই শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন দেয়া হয়ে থাকে। কিন্তুু করোনা ভাইরাসের কারনে স্কুল বন্ধ থাকায় অভিভাবকরা নিয়মিত বেতন দিচ্ছেন না। কেউ কেউ অর্ধেক বেতন দিলেও শিক্ষক-কর্মচারীদেরকে পুরো মাসের বেতন দেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

এমনকি কোন ডে-কেয়ার বা কোচিং না থাকায় এসব প্রতিষ্ঠানের অধিকাংশই শিক্ষক এখন বেকার হওয়ার উপক্রম হয়েছে। সরকারি প্রনোদনার জন্য গত জুলাই মাসে বোচাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বোচাগঞ্জ কিন্ডার গার্ডেন এসোসিয়েশনের কাছে শিক্ষকদের তালিকা চাইলে আমরা সেই তালিকা দেই কিন্তুু এখনও পর্যন্ত কোন প্রনোদনা পাইনি। নাম প্রকাশ না করার স্বার্থে কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের একজন শিক্ষক জানান, তার পরিবারে ৪জন সদস্য রয়েছে। স্কুলের বেতন ও প্রাইভেটের উপরই সে নির্ভরশীল। গত ৬ মাস ধরে স্কুল ও প্রাইভেট বন্ধ থাকায় পরিবার পরিজন নিয়ে চরম কষ্টে দিন অতিবাহিত করছেন। তার মতে এমনিই অবস্থা অধিকাংশ শিক্ষক-কর্মচারীদের।

একজন অভিভাবক জানান, কয়েক মাস ধরে স্কুল বন্ধ থাকায় তারাও মাসিক বেতন দিতে অনিহা প্রকাশ করছেন। এছাড়া ৩৭টি কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের মধ্যে অধিকাংশই স্কুল বাড়ী বা জায়গা ভারা নিয়ে স্কুল করলেও বর্তমান নাজুক অবস্থার মধ্যে নিয়মিত ভাড়া দিতে না পারায় ঘরের মালিকরা ঘর ছাড়ার তাগাদা দিচ্ছেন। এমনি অবস্থা চলতে থাকলে অধিকাংশই এই বে-সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়ে দাঁড়াবে বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *